আমরাও পারি

Published January 11, 2016 by বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ও সহযোগিতা কেন্দ্র

পলিটেকনিকে পড়ুয়া এক ছেলে হাওয়ায় চালিত মোটর সাইকেল আবিস্কার করে । এটা জানার পর আমার বুয়েট পড়ুয়া বন্ধুর মন্তব্য , “” পত্রিকা গুলা আছেই ,এইসব ছোট খাট বিষয় নিয়ে মেতে থাকতে । এ আর এমন কি ?? আবিস্কার করে উল্টায় ফেলছে নাকি ??””
আমি তাকে জিজ্ঞেস করেছিলাম “” লাস্ট ১ বছরে ,তোমার অর্জন কি ?? সে না হয় ছোট খাটো একটা ঘোড়ার ডিম বানিয়েছে । আমি তোমার থেকে হাতির ডিম দেখার আশা রেখেছিলাম । সেটা হয় নাই । উল্টা তুমি তাকে ব্লেইম করছো । কাহিনীটা কি ?? “”
এখন পর্যন্ত বাংলাদেশে জ্ঞানী এবং কর্মঠ মানুষের কোন কদর হয় না । কথাটা শুধু এই বুয়েটিয়ানের জন্য নয় । ঢাবি ,রাবি ,চবি ,জাবি ,জবি ,সবার জন্যই প্রযোজ্য । প্রতিটা ক্যাম্পাসে এই ধরনের কিছু মানুষ থাকে যারা কিনা ব্র্যান্ডের নাম ইউজ করে আরেক জনকে হেয় করে । আচ্ছা ,কেন এমন করে সেটা কি বলতে পারেন ??
আমি বলছি ,এই কাহিনীটা খুব সিম্পল । বাংলাদেশর সেরা জায়গায় থেকে সে ভালো কিছু করে দেখাতে পারে নাই ,কিন্তু এই ছেলেটা পলিটেকনিকে পড়েই নিজ মেধার গুনে সফল হয়েছে । এটাই তার খারাপ লেগেছে । তার জায়গা থেকে চিন্তা করে দেখেন ,তাহলেই বুঝতে পারবেন । খুব কম ক্ষেত্রেই ক্লাসের ফাস্ট বয় এটা মেনে নেয় ,যে ওই ক্লাসের লাস্ট বয় তাকে ডিঙিয়ে highest মার্ক পেয়েছে ।
সকল বুয়েটিয়ান ,ঢাবিইয়ান ,চবিয়ান ,রাবিয়ান ,জাবিয়ান কিন্তু এমন নয় । তারা সবাই বিষয়টা স্বাগত জানাবে । কিন্তু ২/৪ টা থাকবে ,যারা বেকে বসবে সব কিছুতে । তাদের কথা হচ্ছে , দুনিয়ার তাবত ভালো কাজ এবং যোগ্যতার দাবীদার শুধু আমি । আর কেউ নয় । খুব ভুল ধারনা । এটাই যখন কেউ ভুল প্রমান করে দেখায় ,তখন তার উপর খুব রাগ হয় ।
ফ্রেন্ডলিস্টে অ্যাড করার আগে সাধারনত আমি মানুষের পরিচয় ( যদি hide করা থাকে ) জানার চেষ্টা করি । এই চেষ্টা করতে গিয়েই একদিন ভালো ধরনের একটা ধাক্কা খেলাম । এক ছোট ভাই বলছে , “” ভাইয়া , আমি কোথাও চান্স পাই নাই । জাতীয়তে ভর্তি হইসি । আপনাকে কি করে বলবো আমার ক্যাম্পাসের নাম ?? বলার মতো মুখ নাই “”
কথাটা শুনতে কেমন লাগে ? মুখ নাই কেন রে ?? জাতীয়তে পড়লে কি মানুষ জন্তু হয় নাকি ?? কিংবা পাবলিকে পড়লে বিরাট হনু হয় রে ?? জানতাম না তো ?? তুমি কি দেশকে কিছু দিতে চাও ?? ভালো কিছু করার ইচ্ছা আছে ?? উত্তরটা যদি হয় ” হ্যা ,ভাই করতে চাই “” । তাহলে ব্যাটা কাজে নেমে পড় । যোগ্যতা নিয়ে চিন্তা করলে হবে না । ইচ্ছা থাকলে যোগ্যতা অটোমেটিক তৈরি হয়ে যায় । আগামীকাল সকাল থেকে যখন রাস্তায় বের হবা ,তখন মাথাটা নিচু করে নয় ,বরং উচু করে বের হবা । সবাইকে জানান দিবা তুমি একজন জাতীয় ইউনিভার্সিটির ছাত্র । লুকিয়ে রাখবা না । তোমার ইচ্ছাই তোমার পাথেয় ।
তুমি কোথাও চান্স পাও নাই । ভালো কথা । তুমি ব্যার্থ । সেটাও ঠিক । তবে আজীবনের জন্য তুমি ব্যার্থ নও । তুমি ব্যার্থ ছিলে পরীক্ষার ওই ১ টি ঘণ্টা । সেটাকে সারাজীবন টেনে নিয়ে যাওয়ার মানে কি ?? কোন দরকার নাই । do ur job …..
তুমি প্রাইভেটে পড়ো ?? বন্ধুরা বাকা ভাবে তাকায় ?? তারা বলছে ,সার্টিফিকেট কিনতে পাওয়া যায় প্রাইভেটে !! বাদ দাও তাদের কথা !! নিজের চিন্তাধারা কাজে প্রকাশ করো। মানুষ চুপ হয়ে যাবে । যারা ভালো ভালো পজিশনে থাকে তাদের মনটাও অনেক ভালো হয় । তোমার দুর্ভাগ্য ,তুমি কিছু narrow minded মানুষের দেখা পেয়েছ , যারা শুধু নিজেদের ক্যাম্পাসের ইতিহাস বর্ণনা করে গর্ব করতে পারে ,নিজেরা কিচ্ছু করতে পারে না । পারবে বলেও মনে হয় না । অতএব এদের কথা শুনে লাভ নাই ।
এগিয়ে যাও । ভালো কাজের মূল্য সর্বত্র আছে !! তখন ইতিহাস বর্ণনাকারীরা তোমার ইতিহাস বর্ণনা করবে । মনে থাকে যেন …

Written by : Amit Hasan

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: