স্বপ্ন পূরণের বাস্তব গল্প

Published January 28, 2016 by বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ও সহযোগিতা কেন্দ্র

#স্বপ্ন_পূরণের_বাস্তব_গল্প:
.
ছেলেটার স্বপ্ন ছিলো প্রকৌশলী হবে। গ্রামের একটি স্কুল থেকে এসএসসিতে জিপিএ-৫ সহ পাশ করার পর শহরের একটি সরকারি কলেজে ভর্তি হয়। ছেলেটা নিজের স্বপ্ন পূরণের লক্ষ্যে এইচএসসি পরীক্ষা শেষ করার পর ঢাকার একটি ইঞ্জিনিয়ারিং কোচিং সেন্টারে ভর্তি হয়।
.
ভালোই চলছিল তার কোচিং লাইফ। নিয়মিত কোচিং এ ক্লাস করে ও কোচিং এর সব পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ছেলেটার মাঝে সঞ্চার হয়েছিলো হিউজ পরিমাণে কনফিডেন্স। তার স্বপ্ন পুরণে বাধা আসল ৯ আগস্টে, এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের দিন। ঐ দিন তার রুমমেটরা, কোচিংমেটরা জিপিএ-৫ পেলেও সে পায় নি। তার জিপিএ ছিল- ৪.৭৫।
.
পদার্থ, রসায়ন, গণিত ও ইংলিশে ছিল না পর্যাপ্ত জিপিএ। তাই, প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার স্বপ্ন তার সেদিন শেষ হয়ে গেলেও পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৌশল সাবজেক্টে পড়ার চান্স তখনও তার সামনে খোলা ছিল।
.
রেজাল্টের দিন সে কষ্ট পেয়েছিলো শুধুমাত্র একটা কারণে। তার বাবা সেইদিন তাকে ফোন করে বলেছিল, “অমকের বাবা বাজারে লোকজনদের মিষ্টি খাওয়ালো, তার ছেলে এ+ পেয়েছে বলে; আমার কি ইচ্ছা করে না, আমিও মানুষদের মিষ্টি খাওয়াই?”
.
বাবার এই কথাটা শুনে সে খু্ব কষ্ট পেলেও ভেঙ্গে পড়েনি। রেজাল্ট পেয়ে সে হতাশ হয়নি, বরং দুই রাকাত নফল নামায আদায় করে আল্লাহর কাছে সেদিন সে কেঁদেছিল। এতই কান্না করেছিল যে, সৃষ্টিকর্তার কাছে সেদিন সে কিছু চাইতে পারেনি। কিন্তু, আল্লাহ তাওয়ালা মহান, তিনি সবার মনের অবস্থাটা বুঝতে পারেন। সে না চাইলেও আল্লাহ তা ঠিকই শুনেছিল। ছেলেটা মন প্রাণ দিয়ে চেষ্টা করছিল।
.
.
কিন্তু, বারবার সে ব্যর্থ হচ্ছিলো। এ যেন এক কঠোর ধৈর্যের পরীক্ষা। দেখতে দেখতে সব ভার্সিটির এক্সাম শেষ হয়ে যাচ্ছিল, কিন্তু কোথাও তার চান্স হচ্ছিলো না। তবে, সেও ধৈর্য হারা হয়নি। লেগেছিল শেষ পর্যন্ত। অবশেষে, ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত হয় কুবি, নোবিপ্রবি, ঢাবি প্রযুক্তি ইউনিট এই তিনটার ভর্তি পরীক্ষা। এই তিনটা পরীক্ষার মধ্য দিয়েই শেষ হচ্ছিল ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি যুদ্ধ। ছেলেটা এই তিনটা এক্সামেই অংশগ্রহণ করেছিল। আল্লাহ তাওয়ালার অশেষ রহমতে, সে এই তিনটা প্রতিষ্ঠানেই চান্স পেয়েছিল। নোবিপ্রবি-তে এনভারয়নমেন্টাল সায়েন্স, কুবিতে গণিত ও প্রযুক্তি ইউনিটে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং পেয়েছিল। বর্তমানে সে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবিতে) গণিত বিভাগে ভর্তি হয়ে আছে।
.
সে বিশ্বাস করে, আল্লাহ এর মধ্যেই তার মঙ্গল লিখে রেখেছেন। আল্লাহ যা করেন, ভালোর জন্যেই করেন। আল্লাহ তাওয়ালা কারও সাথে অবিচার করেন না।
.
এই ছেলেটা কে, জানো?
.
……..-এই ছেলেটা আর কেউই নয়, এই ছেলেটা আমি।
.
.
আল্লাহ আমাকে প্রকৌশল সাবজেক্টে পড়তে দেয়নি, কারণ সেটাতে আমার মঙ্গল ছিলো না। আল্লাহ আমাকে এখন যেখানে যে সাবজেক্টে রেখেছেন, এটাই আমার জন্যে সর্বোত্তম জায়গা।
.
.
ভাই, তোমরা যারা ভর্তি পরীক্ষা দিবে তাদেরকে বলছি; হতাশ হয়ো না, চেষ্টা করো শেষ পর্যন্ত। তোমার চেস্টা সঠিক হলে, অবশ্যাই তুমি সফল হবে।
.
.
আল্লাহ তাওয়ালা কারও সাথে কোন অবিচার করেন না।
.
.
লিখেছেন:

Md. Nazmul Haque, Department Of Mathematics, Comilla University. Mobile: 01737-101388 Email: nazmulhaque.120413@gmail.com Facebook: www.facebook.com/nazmul120413

Md. Nazmul Haque, Department Of Mathematics, Comilla University.
Mobile: 01737-101388
Email: nazmulhaque.120413@gmail.com
Facebook: http://www.facebook.com/nazmul120413

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s