Engineering Related Exclusive Post By Koushik Vai

All posts in the Engineering Related Exclusive Post By Koushik Vai category

ইঞ্জিনিয়ারিং সংক্রান্ত পোস্ট পর্ব-০৪

Published April 22, 2016 by বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ও সহযোগিতা কেন্দ্র

#ইঞ্জিনিয়ারিং_সংক্রান্ত_পোষ্ট-৪:

সায়েন্স ব্যাকগ্রাউন্ডের অথচ ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার স্বপ্ন নেই এমন স্টুডেন্ট পাওয়া দূর্লভ। এই পোষ্টে থাকছে বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ইঞ্জিনিয়ারিং সাবজেক্টের আসন সংখ্যা, আবেদনের যোগ্যতা, মানবন্টন। আজকের আলোচনা হাবিপ্রবি নিয়ে।

ইতিহাস : ১৯৭৯ সালে হাজী মোহাম্মদ দানেশ এগ্রিকালচারাল কলেজ নামে প্রতিষ্ঠানটির যাত্রা শুরু। তখন ৩ বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা পড়ানো হতো। এই কলেজের বর্ধিত ও পূর্নাঙ্গ রুপ হলো হাবিপ্রবি। ১৯৯৯ সালের ১১ সেপ্টেম্বর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের মাধ্যমে উত্তরাঞ্চলের প্রথম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে হাবিপ্রবির যাত্রা শুরু হয়।

অবস্থান: দিনাজপুর শহর হতে ১০ কিমি উত্তরে ‘ঢাকা-রংপুর-দিনাজপুর মহাসড়ক সংলগ্ন বাশের হাট নামক স্থানে অবস্থিত।

প্রথমে শুধু কৃষিভিত্তিক বিষয়গুলোকে গুরুত্ব দেওয়া হলেও তথ্যপ্রযুক্তির বিকাশের সাথে সাথে ইঞ্জিনিয়ারিং অঅনুষদ কখোলা হয় এবং ইঞ্জিনিয়ারিং সাবজেক্ট পড়ানোশুরু করা হয়। ইঞ্জিনিয়ারিং সাবজেক্ট গুলোর নাম এবং আসন সংখ্যা নিন্মে দেওয়া হলো:

☞ B ইউনিট

১।কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং(CSE) – ৭০ টি আসন

২।ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং(EEE) – ৭০ টি আসন

৩।ইলেকট্রিক্যাল এন্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং(ECE) – ৭০ টি আসন

☞ D ইউনিট
১।মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারি(ME) – ৫০ টি আসন

২।সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং(CE) – ৫০ টি আসন

৩।এগ্রিকালচারাল ইঞ্জিনিয়ারিং(AE) – ৬০ টি আসন

৪।ফুড প্রসেস এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং(FPE) – ৬০ টি আসন

☞ E ইউনিট

১।আর্কিটেকচার(B.Arch) – ৩৫ টি আসন

✎ আবেদনের যোগ্যতা: মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় পৃথক ভাবে নূন্যতম জিপিএ ৩.০০ সহ মোট নূন্যতম ৬.৫০ থাকতে হবে।

পরীক্ষার মানবন্টন:

☑ B ইউনিট

ইংরেজী-২৫, পদার্থবিজ্ঞান-২৫, রসায়ন-২৫, গণিত-২৫

মোট – ১০০

সময়: ১ ঘন্টা

☑ D ইউনিট

ইংরেজী-২৫, পদার্থবিজ্ঞান-২৫, রসায়ন-২৫, গণিত-২৫

সময়: ১ ঘন্টা

মোট – ১০০

☑ E ইউনিট

ইংরেজী-১০, পদার্থবিজ্ঞান-২০, রসায়ন-২০, গণিত-২০, ড্রয়িং – ৫০

মোট – ১৫০

সময়: ১ ঘন্টা ৩০ মিনিট

♦♦মেধাক্রম গণনা :

B & D ইউনিট: মোট ১৫০ নাম্বারে মেধাক্রম গণনা করা হবে। ভর্তি পরীক্ষায় ১০০ নাম্বার এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের জিপিএ হতে ৫০ নাম্বার গণনা করা হবে।

E ইউনিট: মোট ২০০ নাম্বারে মেধাক্রম গণনা করা হবে। ভর্তি পরীক্ষায় ১০০ নাম্বার, মুক্ত হস্ত ড্রয়িং এ ৫০ নাম্বার এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের জিপিএ হতে ৫০ নাম্বার গণনা করা হবে।

♣♣জিপিএ গণনা :
(মাধ্যমিকের জিপিএ*৪)+(উচ্চমাধ্যমিকের জিপিএ*৬)

বি.দ্র: ক্যালকুলেটর ব্যবহার করা যাবে না।
সেকেন্ড টাইম এক্সাম দেওয়া যায়

#

Koushik Kumar Biswas, Department Of Electrical & Electronics Engineering (EEE), Shahjalal University Of Science & Technology (SUST). Facebook: http://www.facebook.com/koushikkumar.biswas

Koushik Kumar Biswas, Department Of Electrical & Electronics Engineering (EEE), Shahjalal University Of Science & Technology (SUST).
Facebook: http://www.facebook.com/koushikkumar.biswas

Advertisements

ইঞ্জিনিয়ারিং সংক্রান্ত পোস্ট পর্ব-০৩

Published February 4, 2016 by বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ও সহযোগিতা কেন্দ্র

#ইঞ্জিনিয়ারিং_সংক্রান্ত_পোষ্ট ৩: সায়েন্স ব্যাকগ্রাউন্ডের অথচ ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার স্বপ্ন নেই এমন স্টুডেন্ট পাওয়া দূর্লভ। এই পোষ্টে থাকছে বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ইঞ্জিনিয়ারিং সাবজেক্টের আসন সংখ্যা, আবেদনের যোগ্যতা, মানবন্টন। আজকের আলোচনা পাবিপ্রবি নিয়ে

পাবিপ্রবি : ২০০১ সালে র সরকারের এক্ট অনুযায়ী পাবনায় একটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ২০০৮ সালের ১৫ জুলাই একাডেমীক কার্যক্রম শুরু হয় পাবিপ্রবির । ইতোমধ্যেই একাডেমীক গতিশীলতা আর কোর্স কারিকুলামের জন্য সুনাম অর্জন করেছে পাবিপ্রবি। বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং সার্টিফিকেট(URP, ARC ব্যতীত) দেওয়া হয়।

ইঞ্জিনিয়ারিং সাবজেক্ট গুলো এবং আসন সংখ্যা নিন্মে দেওয়া হলো:

ইউনিট – A1

১।কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং(CSE)- ৫০ টি আসন

২।ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং(EEE)- ৫০ টি আসন

৩।ইলেকট্রিক এন্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং(ETE)- ৪০ টি আসন

৪।ইনফরমেশন এন্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং(ECE)- ৪০ টি আসন

৫।সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং(CIVIL) – ৪০ টি আসন

৬।নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা(URP) – ৩০ টি আসন

ইউনিট – A2

১।স্থাপত্য(ARC) – ৩০ টি আসন + A1 ইউনিটের সকল বিভাগ

আবেদনের যোগ্যতা: মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় পৃথক ভাবে নূন্যতম জিপিএ ৪.০০(৪র্থ বিষয় সহ) এবং মোট নূন্যতম জিপিএ ৮.৫০(৪র্থ বিষয়সহ) থাকতে হবে। এছাড়া উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় গণিত, পদার্থবিজ্ঞান ও রসায়নে নূন্যতম জিপিএ ৪.০০ পেতে হবে।

পরীক্ষার মানবন্টন(A1):

ইংরেজী-১৫, পদার্থবিজ্ঞান-২৫, রসায়ন-২৫, গণিত-২৫

মোট – ৯০

সময়: ১ ঘন্টা

পরীক্ষার মানবন্টন(A2):

ইংরেজী-১৫, পদার্থবিজ্ঞান-২৫, রসায়ন-২৫, গণিত-২৫, ড্রয়িং – ৩০

মোট – ১২০

সময় : ১ ঘন্টা ৩০ মিনিট

মেধাক্রম গণনা : মোট ১০০ নাম্বারে মেধাক্রম গণনা করা হবে। ৯০ নাম্বারের MCQ পরীক্ষা এবং মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিকের জিপিএ হতে ১০ নাম্বার যোগ করা হবে।

A2 ইউনিটের ক্ষেত্রে ৯০ নম্বর MCQ পরীক্ষা ইউনিটের সাথে অভিন্ন প্রশ্নপত্রে একই সময়ে অনুষ্ঠিত হবে। বাকী ৩০ মিনিট ড্রয়িং পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে

জিপিএ গণনা :

(মাধ্যমিকের জিপিএ * ০.৮) + (উচ্চমাধ্যমিকের জিপিএ * ১.২)

*MCQ পরীক্ষায় পাশ মার্ক ৩৬

*সেকেন্ড টাইমার রা এক্সাম দিতে পারবে

*ক্যালকুলেটর ব্যবহার করা যাবে না
.
.
লিখেছেন:

Koushik Kumar Biswas, Department Of Electrical & Electronics Engineering (EEE), Shahjalal University Of Science & Technology (SUST). Facebook: http://www.facebook.com/koushikkumar.biswas

Koushik Kumar Biswas, Department Of Electrical & Electronics Engineering (EEE), Shahjalal University Of Science & Technology (SUST).
Facebook: http://www.facebook.com/koushikkumar.biswas

ইঞ্জিনিয়ারিং সংক্রান্ত পোস্ট পর্ব- ০২

Published January 31, 2016 by বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ও সহযোগিতা কেন্দ্র

#ইঞ্জিনিয়ারিং_সংক্রান্ত_পোষ্ট পর্ব: ০২:

সায়েন্স ব্যাকগ্রাউন্ডের অথচ ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার স্বপ্ন নেই এমন স্টুডেন্ট পাওয়া দূর্লভ। এই পোষ্টে থাকছে বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ইঞ্জিনিয়ারিং সাবজেক্টের আসন সংখ্যা, আবেদনের যোগ্যতা, মানবন্টন। আজকের আলোচনা যবিপ্রবি নিয়ে

যবিপ্রবি নব্যপ্রতিষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মাঝে অন্যতম। ২০০৮ সালে একাডেমীক কার্যক্রম শুরু করা এই বিশ্ববিদ্যালয় ইতোমধ্যেই একাডেমীক গতিশীলতা, কোর্স কারিকুলামের জন্য সুনাম অর্জন করেছে। সেশন জট নেই এবং অনেকগুলো ইঞ্জিনিয়ারিং সাবজেক্ট রয়েছে।

যবিপ্রবি(A unit/ ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদ):

ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং – ৩৫ টি আসন

কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল(CSE) – ৫০ টি আসন

ইন্ড্রাস্ট্রিয়াল এন্ড প্রোডাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং(IPE) – ৩৫ টি আসন

কেমিকৌশল বিভাগ(ChE) – ৪০ টি আসন

পেট্রোলিয়াম এন্ড মাইনিং ইঞ্জিনিয়ারিং – ৩৫ টি আসন

**মেকানিক্যাল ও বায়োমেডিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ অচিরেই খোলা হবে 😉 🙂

**বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং সার্টিফিকেট দেওয়া হয়।

আবেদনের যোগ্যতা(২০১৫ র সার্কুলার অনুযায়ী):

মাধ্যমিক/সমমান ও উচ্চমাধ্যমিক/সমমান উভয় পরীক্ষায় চতূর্থ বিষয়সহ নূন্যতম জিপিএ ৩.০০ সহ মোট জিপিএ ৭.০০ থাকতে হবে। উচ্চমাধ্যমিক/সমমান পরীক্ষায় রসায়ন, পদার্থবিজ্ঞান ও গণিতে নূন্যতম A- থাকতে হবে।

মেধাক্রম গণনা :
৮০ নাম্বারের MCQ পরীক্ষা + ২০ নাম্বার জিপিএ হতে, মোট ১০০ নাম্বারে মেধাক্রম গণনা করা হবে।

ভর্তি পরীক্ষার মানবন্টন:

ইংরেজী – ১০, পদার্থবিজ্ঞান – ২৫, গণিত – ২৫, রসায়ন – ২০

মোট: ৮০

জিপিএ গণনা :

নিয়মিত/ফার্স্ট টাইমার দের জন্য:
(মাধ্যমিকের জিপিএ+উচ্চমাধ্যমিকের জিপিএ)* ২

অনিয়মিত/সেকেন্ড টাইমার/ইমপ্রুভ দের জন্য:
(মাধ্যমিকের জিপিএ+উচ্চমাধ্যমিকের জিপিএ)* ১.৯০

পরীক্ষার সময়: ১ ঘন্টা ৩০ মিনিট

#ক্যালকুলেটর_ব্যবহার_করা_যাবে_নাহ

বি.দ্র: পরীক্ষায় প্রাপ্ত নাম্বার প্রকাশ করা হয় না। তাই “কতো” পেলে “কোন” সাবজেক্ট পাওয়া যায় জিজ্ঞাসা করে লাভ নাই।

লিখছেন:

Koushik Kumar Biswas, Department Of Electrical & Electronics Engineering (EEE), Shahjalal University Of Science & Technology (SUST). Facebook: http://www.facebook.com/koushikkumar.biswas

Koushik Kumar Biswas, Department Of Electrical & Electronics Engineering (EEE), Shahjalal University Of Science & Technology (SUST).
Facebook: http://www.facebook.com/koushikkumar.biswas

ইঞ্জিনিয়ারিং সংক্রান্ত পোস্ট পর্ব-০১

Published January 31, 2016 by বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ও সহযোগিতা কেন্দ্র

#ইঞ্জিনিয়ারিং_সংক্রান্ত_পোষ্ট পর্ব-০১:
.
সায়েন্স ব্যাকগ্রাউন্ডের অথচ ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার স্বপ্ন নেই এমন স্টুডেন্ট পাওয়া দূর্লভ। এই পোষ্টে থাকছে বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ইঞ্জিনিয়ারিং সাবজেক্টের আসন সংখ্যা, আবেদনের যোগ্যতা, মানবন্টন। আজকের আলোচনা শাবিপ্রবি নিয়ে

শাবিপ্রবি : শাবিপ্রবি বাংলাদেশের প্রথম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। ১৯৮৫ সালে প্রতিষ্ঠিত এই বিশ্ববিদ্যালয়টি ইতোমধ্যেই অর্জনের দিক থেকে অনন্য। প্রতিনিয়ত প্রোগ্রামিং ও রোবোটিক্স প্রতিযোগীতা গুলোয় শাবিপ্রবি ভালো করছে। ইঞ্জিনিয়ারিং সাবজেক্ট গুলো পড়ার জন্য অনেকের লক্ষ্য হতে পারে শাবিপ্রবি। ইঞ্জিনিয়ারিং সাবজেক্ট গুলো এবং আসন সংখ্যা নিন্মে দেওয়া হলো:

গ্রুপ – ১

১।কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং(CSE)- ৬০ টি আসন

২।ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং(EEE)- ৩৫ টি আসন

৩।মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং(MEE)- ৩৫ টি আসন

৪।ইন্ড্রাসট্রিয়াল প্রোডাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং(IPE)- ৫০ টি আসন

৫।কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড পলিমার সায়েন্স(CEP)- ৫০ টি আসন

৬।সিভিল এন্ড এনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিং(CEE) – ৫০ টি আসন

৭।পেট্রোলিয়াম এন্ড মাইনিং ইঞ্জিনিয়ারিং(PME) – ৩৫ টি আসন

৮।ফুড ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টি টেকনোলজি(FET) – ৪০ টি আসন

গ্রুপ – ৩

১।আর্কিটেকচার(ARC) – ৩০ টি আসন

এই বছরে ভর্তিকৃত ছাত্র-ছাত্রীদের পছন্দের ক্রম: CSE>EEE>MEE>IPE>CEP>CIVIL> PME>FET

আবেদনের যোগ্যতা: মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় পৃথক ভাবে নূন্যতম জিপিএ ৩.০০ সহ মোট নূন্যতম ৭.০০ থাকতে হবে।

বিষয়ভভিত্তিক যোগ্যতা:
একটি নির্দিষ্ট বিভাগে ভর্তি হওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট বিষয়ে উচ্চমাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় নূন্যতম জিপিএ ৩.৫০ থাকতে হবে

CSE, EEE, IPE, ARC, MEE – পদার্থবিজ্ঞান, গণিত

CEE, PME – পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, গণিত

CEP – রসায়ন, গণিত

FET – জীববিজ্ঞান, রসায়ন, গণিত

পরীক্ষার মানবন্টন(গ্রুপ ১ এর বিষয়গুলোর জন্য):

ইংরেজী-১০, পদার্থবিজ্ঞান-২০, রসায়ন-২০, গণিত-২০

মোট – ৭০

সময়: ১ ঘন্টা ৩০ মিনিট

পরীক্ষার মানবন্টন(গ্রুপ ১ ও গ্রুপ ৩ এর বিষয়গুলোর জন্য):

ইংরেজী-১০, পদার্থবিজ্ঞান-২০, রসায়ন-২০, গণিত-২০, স্থাপত্য ও ড্রয়িং বিষয়ক সাধারন জ্ঞান – ৩০

মোট – ১০০

সময় : ২ ঘন্টা

মেধাক্রম গণনা : মোট ১০০ নাম্বারে মেধাক্রম গণনা করা হবে। ৩০% আসবে জিপিএ হতে আর ৭০% আসবে ভর্তি পরীক্ষায় প্রাপ্ত নাম্বার হতে

জিপিএ গণনা :

নিয়মিতদের ক্ষেত্রে:
(মাধ্যমিকের জিপিএ+উচ্চমাধ্যমিকের জিপিএ)* ৩

অনিয়মিতদের ক্ষেত্রে/সেকেন্ড টাইমার দের ক্ষেত্রে:
(মাধ্যমিকের জিপিএ+উচ্চমাধ্যমিকের জিপিএ)* ২.৭

লিখছেন:

Koushik Kumar Biswas, Department Of Electrical & Electronics Engineering (EEE), Shahjalal University Of Science & Technology (SUST). Facebook: http://www.facebook.com/koushikkumar.biswas

Koushik Kumar Biswas, Department Of Electrical & Electronics Engineering (EEE), Shahjalal University Of Science & Technology (SUST).
Facebook: http://www.facebook.com/koushikkumar.biswas

%d bloggers like this: